জয়ী তৃণমূল তবে আশার আলো দেখছে বিজেপি।


প্রত্যাশিত ভাবেই রাজ্যের দুই উপনির্বাচন নোয়াপাড়া বিধানসভা এবং উলুবেড়িয়ার লোকসভা উপনির্বাচনে জয়ী হল শাসক দল তৃণমূল। এদিন   ভোট গণনার শুরু থেকেই এগিয়ে থাকে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থীরা। নোয়াপাড়ায় 63,018 ভোটে জয়ী হয় তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী সুনীল সিং। তিনি পেয়েছেন ১ লক্ষ ১১ হাজার ৭২৯ ভোট। বিজেপি প্রার্থী সন্দীপ বন্দ্যোপাধ্যায় পেয়েছেন ৩৮, ৭১১ ভোট। সিপিআইএম প্রার্থী গার্গী চট্টোপাধ্যায় পেয়েছেন ৩৫,৪৯৭ ভোট। কংগ্রেস  প্রার্থী গৌতম বসু পেয়েছেন ১০, ৫২৭ ভোট।

 নোয়াপাড়া বিধানসভা উপনির্বাচনের মত উলুবেড়িয়া লোকসভা উপনির্বাচনের ফলাফল গণনার শুরু থেকেই এগিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস। ১২ রাউন্ড গণনার শেষে ৩ লাখ ২২ হাজার ১৯৪ ভোটে এগিয়ে রয়েছেন তৃণমূল প্রার্থী সাজেদা আহমেদ। ১ লাখ ৮৩ হাজার ৭৮৬ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে বিজেপি। চতুর্মুখী লড়াইয়ে ৯১ হাজার ৮২৭ ভোট পেয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছে সিপিএম। ১৫ হাজার ২২৭ ভোট পেয়ে চতুর্থ স্থানে রয়েছে কংগ্রেস।

https://www.facebook.com/pg/bidrohi.in/posts/?ref=page_internal

তৃণমূল কংগ্রেসের সাপোর্টাররা বলছেন এই জয় প্রত্যাশীতই ছিল তাদের কাছে । তবে জয়ের ব্যবধান আরো বাড়ার কথা ছিল। এদিন cpim কে কড়া টক্কর দিয়ে বিজেপি যেভাবে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে তাতে রাজ্য রাজনীতিতে একটা বড় পরিবর্তন যে অচিরেই আসতে চলেছে তা বোঝা যাচ্ছে।এদিন বিজেপি কর্মীরা দাবি করেন যেভাবে বুথ দখল করে বিরোধীদের বের করে দিয়ে ভোট করেছেন তৃণমূল তাতে ওরাই জিতবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু সঠিক ভাবে ভোট হলে ওদের জয়ের মার্জিন আরো কমতো এমনকি হারতেও পারতো সেটা রেজাল্ট দেখেই বোঝা যাচ্ছে।বিজেপি কর্মীদের আরো দাবি এটাকে আমরা ভোট বলতে পারি না , কারন এভাবে বুথ দখল করে ভোট আর কোন রাজ্যে হয় না। এখানে শাসকদল তৃণমূল পুরোনো বামেদের মতোই ভয় দেখিয়ে ও বুথ দখল করে ভোটে জিতছে। সঠিক ভাবে নির্বাচন করে দেখুক তৃণমূল কংগ্রেস হারবে।

তবে যেই জিতুক না কেন বিজেপি দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসায় সেটা যে পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে টনিক হিসেবে কাজ করবে বিজেপির জন্য সেটা বলাই বাহুল্য।


Leave a Reply