ছেলের দোষের সাজা দেওয়া হল মাকে ধর্ষণ করে I


ভালোবাসায়  জাত পাত ধনি গরিব, ধর্ম কোন কিছুই  মানে না আর তাই ভালোবাসার কারণে যুগে যুগে মানুষ কত কিছুই না করেছে প্রাণের মায়া ত্যাগ করে । এমনি এক  ঘটনা ঘটল যোগীর উত্তর প্রদেশের শামলি জেলায়।শোনা যায় গ্রামের একটি গরিব পরিবারের  ছেলে ধনী পরিবারের মেয়েকে নিয়ে পালিয়েছে। আর এর পরিনাম যে কি ভয়ানক হতে পারে তা শুনলে চমকে যাবেন সবাই I ছেলের দোষের সাজা দেওয়া হল তার মাকে গণধর্ষণ  করে I  এই অভিযোগ উঠল উত্তর প্রদেশের শামলি জেলার এক পরিবারের বিরুদ্ধে। একই সঙ্গে ধর্ষিতার  পরিবারকে টানা ৬ দিন বেঁধে রেখে মারধরের অভিযোগও  উঠেছে ওই পরিবারের বিরুদ্ধে।

শামলির বদাউত গ্রামের ওই দলিত মহিলা জানান ১৯ ডিসেম্বর তাদেরই আত্মীয় ধনী পরিবারের সদস্যরা ফোনে দাবি করে, দীন মজুর পরিবারের বড় ছেলে তাদের মেয়েকে নিয়ে পালিয়েছে। রাতে মহিলা ও তার স্বামী,ছোট ছেলে ও জামাই সহ গোটা পরিবারকে টেনে গাড়িতে তোলে তারা। পাশের নোজাল গ্রামে তাদের বাড়ীতে নিয়ে বেঁধে রাখে। এর পর জামা কাপড় খুলিয়ে শুরু হয় মারধোর এবং মহিলাকে ধর্ষণ  করা হয়। মহিলার ছেলে পালালে ওই অপহরন ও অত্যাচারের খবর পায় শামলি থানা। ২৫ ডিসেম্বর পুলিশ গিয়ে বাকীদের উদ্ধার করে।

শামলি থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক কৃষ্ণ কুমার বলেছেন,-” ওই যুগল ডিসেম্বরের প্রথম থেকেই নিখোঁজ” সাহিবাদ থানায় তা নিয়ে অভিযোগ করা হয়েছে।
তবে খবরে প্রকাশ ছেলের মায়ের ধর্ষণের  অভিযোগটি মিথ্যা  নয় এবং ধর্ষককে  ৭ দিনের জেল হেফাজতে রাখা হয়েছে। কৃষ্ণ কুমার বাবু বলেন দোষীরা  কঠোর  শাস্তি পাবে। যে শাস্তি শুনে আর কেউ ধর্ষণের  নাম মুখে আনবে না। এবং পাশাপাশি  ওই যুগলবন্দিকে ফিরিয়ে আনার চেস্টাও  চলছে। তিনি আরো জানান তারা দুজনেই প্রাপ্ত বয়স্ক এতে কোন পরিবারের আপত্তি থাকলেও তাদের বিয়ে হবে বলেই তিনি আশ্বাস দেন।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *